অধ্যায় ১ : বিমার সূচনা

  • আধুনিক বানিজ্যিক বিমা ব্যবসা যা আজকাল করা হয়ে থাকে এর উত্পত্তি বলা যেতে পারে লন্ডনের লয়েডস কফি হাউস থেকে I
  • বিমা ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ১৯১২ সালে জীবন বিমা কোম্পানি আইন ও ভবিষ্য নিধি আইন পাস করা হয় I এই আইন বাধ্যতামূলক করে দেয় যে প্রত্যেক কোম্পানিকে একজন কিস্তি নির্ধারণকারী (এক্চুএরি) দ্বারা কিস্তি (প্রিমিয়াম) হার ছক ও বিভিন্ন ব্যবধানে মূল্যায়ণ (ভ্যালুয়েশন) প্রত্যয়ন করতে হয় I
  • ভারতের জীবন বিমা ব্যবসার পরিচালনা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিমা আইন ১৯৩৮ ছিল আইনি সংস্থান এই আইন এখনো বলবৎ আছে I
  • জীবন বিমার জাতীয়করণ : ১৯৫৬ সালের ১ লা সেপ্টেম্বর জীবন বিমা ব্যবসার জাতীয়করণ করা হয় এবং ভারতীয় জীবন বিমা নিগম (এল আই সি) স্থাপিত হয় I
  • সাধারণ বিমার জাতীয়করণ : ১৯৭২ সালে সাধারণ বিমা ব্যবসারও জাতীয়করণ করা হয় এবং ভারতীয় সাধারণ বিমা নিগম ও তার চার সহকারী সংস্থা স্থাপিত হয় I
  • মালহোত্রা কমিটি ও আই আর ডি এ : ১৯৯৩ সালে মালহোত্রা কমিটি স্থাপিত হলো শিল্পের উন্নতির জন্য পরিবর্তন আবিষ্কার করতে ও সুপারিশ করতে তৎসহ প্রতিযোগিতার উপাদান পুন:প্রবর্তন করতে I
  • জীবন অসাধারণ উভয় বিমা ব্যবসার জন্য আইন দ্বারা প্রতিষ্ঠিত নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে ২০০০ সালে এপ্রিল মাসে স্থাপিত হলো বিমা নিয়ন্ত্রক ও উন্নয়ন আধিকারিক (আই আর ডি এ) I
  • বর্তমানে ভারতে ২৪ টি কোম্পানি ব্যবসা করছে – এল আই সি ও ২৩ টি বেসরকারী জীবন বিমা কোম্পানি I
  • সম্পদ হতে পারে দ্রব্য বিশেষ (যেমন একটি গাড়ি বা একটি বাড়ি) অথবা অদ্রব্য বিশেষ (যেমন নাম ও সুনাম) অথবা ব্যক্তিগত (যেমন একজনের চোখ, একজনের অঙ্গ-প্রতঙ্গ) I
  • ঝুঁকি : সম্পত্তির ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনাকে বলা হয় ঝুঁকি I
  • দুর্যোগ : ঝুঁকির ঘটনার কারণকে বলা হয় দুর্যোগ I
  • ঝুঁকির বোঝা খরচ, ক্ষতি ও অক্ষমতাকে বোঝায় যা একটি প্রদত্ত ক্ষতি পরিস্থিতি/ঘটনায় উন্মুক্ত হওয়ার ফলে একজনকে সহ্য করতে হয় I
  • ঝুঁকির প্রাথমিক বোঝা সেই ক্ষতি নিয়ে গঠিত যা আসলে ভোগ করে বাড়ির লোকেরা (এবং ব্যবসা ইউনিট), শুদ্ধ ঝুঁকি ঘটনার একটি ফলাফল হিসেবে এই ক্ষতি প্রায়ই প্রত্যক্ষ ও পরিমাপযোগ্য এবং সহজেই বিমা দ্বারা ক্ষতিপূরণ করতে পারা যায় I একটি কারখানায় অগ্নিকান্ড ও পণ্যের ক্ষতির মূল্য অনুমান করা যেতে পারে I
  • ঝুঁকির গৌণ বোঝা খরচ ও প্রয়াস নিয়ে গঠিত যা একজনকে বহন করতে হয় শুধুমাত্র ঘটনা থেকে যেটাতে একজন ক্ষতি পরিস্থিতিতে উম্মুক্ত থাকে I এমনকি যদি বলা ঘটনা না ঘটে, এই বোঝা তখনও বহন করতে হবে I
  • ভবিষ্যতের সম্ভাব্য ক্ষতির জন্য একটি সংরক্ষিত তহবিল একপাশে সরিয়ে রাখাকে বলে ঝুঁকির গৌণ বোঝা I বিমা হলো ঝুঁকি হস্তান্তরের একটি পদ্ধতি I
  • ঝুঁকির গৌণ বোঝা কিভাবে ব্যবস্থা করা হয় : এইরকম একটি পরিনাম পূরণের জন্য একটি সংরক্ষিত তহবিল একপাশে সরিয়ে রাখা হয় I
  • বিমা কোম্পানির কাছে ঝুঁকির হস্তান্তর : বিমা হলো একমাত্র উপায় যার দ্বারা ব্যক্তিরা তাদের ঝুকির ব্যবস্থাপনা করতে পারে I
  • ঝুঁকির পরিহার : একজন একটি দুর্ঘটনা ঘটার ভয়ে বাড়ির বাইরে বেরোনোর ঝুঁকি নেবে না বা যখন বিদেশে থাকে অসুস্থ হবার ভয়ে ভ্রমন করতে পারে না I
  • ঝুঁকি ধারণ : একজন ঝুঁকি প্রভাব পরিচালনা করার চেষ্টা করে এবং ঝুঁকি ও তার প্রভাব সহ্য করার সিদ্ধান্ত নেই নিজেই I এটি আত্ম বিমা হিসেবে পরিচিত I
Related Material  IC-33 Chapter 7

  • পদক্ষেপ সংগঠন সম্ভবনা কমানো ‘ক্ষতি প্রতিরোধ’ হিসেবে পরিচিত I ক্ষতির মাত্র কমাতে ব্যবস্থাকে ‘ক্ষতি নিরসন’ বলা হয় I
  • স্ব অর্থায়নের মাধ্যমে ঝুঁকি ধারণ যেমন ঘটে সেরকম কোনো ক্ষতির জন্য স্ব পরিশোধ করতে হয় I
  • ঝুঁকি হস্তান্তর ঝুঁকি ধরণের একটি বিকল্প I ঝুঁকি হস্তান্তর অন্য পক্ষকে ক্ষতির জন্য দায়িত্ব হস্তান্তর করে থাকে I
  • বিমা বনাম নিশ্চিতকরণ : বিমা একটি ঘূতনার সুরক্ষা বোঝায় যেটা ঘটতে পারে যেখানে নিশ্চিতকরণ একটি ঘটনার সুরক্ষা বোঝায় যা ঘটবে I
  • পুলিং হলো বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে বহুসংখ্যক ব্যক্তির দান (যাকে বলে প্রিমিয়াম) সংগ্রহ করা I এইসব ব্যক্তিদের সম্পত্তি একই রকম যার ক্ষতির সম্ভবনাও একই I তহবিলের এই পুল ব্যবহার করা হয় কিছু মানুষের ক্ষতিপূরণ দিতে যারা দুর্যোগের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ I
  • বিমাকে এমন একটি পদ্ধতি বলা যেতে পারে যার দ্বারা অল্প কিছু লোকের ক্ষতি যারা দুর্ভাগ্যবশত এইধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে, তারা ভাগ করে নেই যারা একই রকম অনিশ্চিত ঘটনাবলী/অবস্থার সম্মুখীন হতে পারত I বিমা হলো একটি পদ্ধতি যা কয়েকজনের ক্ষতি অনেকে মিলে ভাগ করে নেওয়া I
  • একটি গ্রামে ৪০০ টি বাড়ি আছে, যার প্রত্যেকটির মূল্য ২০০০০ টাকা I
  • প্রত্যেক গ্রীষ্মে সেখানে আগুন লাগে I গড়ে ৪ টি বাড়ি আগুনে পুড়ে যায় I
  • এই অগুনের দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা বাড়ির মূল্যের ১% I
  • আগুনে মোট ক্ষতির পরিমান ৮০০০০ টাকা I
  • সব বাড়ির মালিকরা এক হয়ে ২০০ টাকা হিসেবে জমা করলো I মোট ৮০০০০ টাকার তহবিল গঠিত হলো I এই ৮০০০০ টাকা ওই ৪ জন বাড়ির মালিককে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য যথেষ্ট যাদের বাড়ির মূল্য ২০০০০ টাকা করে I

 

  • সম্ভবনা ও ক্ষতির পরিমানের বৃদ্ধির সাথে বিমার খরচ সমহারে বৃদ্ধি পায় I
  • বিমা নিয়ন্ত্রক ও উন্নয়ন আধিকারিক হলো ভারতের বিমা শিল্পের নিয়ন্ত্রক I
  • ঝুঁকি গ্রহনের আগে, রেটিং এর উদ্দেশ্যে ঝুঁকি নির্ধারণ করতে বিমাপ্রদেত্তা সম্পত্তির যাচাই ও অনুসন্ধান করবে I
CONTACT US